Sun. Mar 3rd, 2024
    WhatsApp Group Join Now
    Telegram Group Join Now

    যোয়ানের বহুবিধ উপকারিতা যোয়ানকে ঔষধির মর্যাদা দিয়েছে। বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে যোয়ান অতীব হিতকারী। প্রসূতি মহিলাদের নিয়মিত যোয়ান সেবন করালে তাদের পাচনতন্ত্র সুস্থ ও সবল হয়ে ওঠে। সামান্য ও স্বাভাবিক জ্বরেও যোয়ান জ্বরনাশক হিসাবে কাজ করে। যোয়ান মায়ের দুধকে বাড়াতে সাহায্য করে। যাদের সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর স্তনে দুধ থাকে না বা কম থাকে তাদের স্তনের দুধ বাড়াতে যোয়ান অত্যন্ত সহজ ফলপ্রদ।

    এছাড়া যোয়ান হজমকারক, অরুচিনাশক রুচিবৰ্দ্ধক। যোয়ান শুরুশূল, বায়ু ও করুত পেটের গোলমাল, কৃমি ও যোনি বিকার নাশ করতে সক্ষম।

    বিভিন্ন রোগে যোয়ানের ব্যবহার ও উপকার 

    পেট ব্যথা: যদি পেটে ব্যথা হয় তাহলে গুড়ের যোয়ান, বিটলবণ এবং হিং একসঙ্গে গুড়ো করে নিয়ে ঘরে রাখলে পরে পেট ব্যথার সময় এই চর্ণ এক গ্রাম পরিমাণ মাথে দিয়ে গরম জল পান করলে ব্যথা কমে যাবে। দিনে দু’বার এভাবে গরম জলের সঙ্গে চূর্ণ সেবন করতে হবে।

    কোমর ব্যথা : ১০০ গ্রাম যোয়ান চূর্ণ এবং ১০০ গ্রাম গুড় নিয়ে একসঙ্গে মিশিয়ে রেখে দিতে হয়। এই মিশ্রণ ৫-৬ গ্রাম সকাল-বিকাল সেবন করলে কোমরের ব্যথা ভালো হয়ে যায়। যোয়ানকে চূর্ণ করে তাতে সমমাত্রায় গুড় মিশিয়ে রাখতে হবে।

    আরো পড়তে এখানে ক্লিক করুন 👈

    হাঁপানি: হাঁপানির রোগীদের যোয়ানের গরম পুলটিস করে বুকে সেঁক করলে আরাম পাওয়া যায়।

    পেটের গ্যাস: পেটের গ্যাসের সমস্যা থাকলে ৪ গ্রাম যোয়ান চূর্ণ এবং এক গ্রাম বিট লবণ গরম জলের মধ্যে দিয়ে সেবন করলে পেটের গ্যাস ভালো হয়ে যায়।

    কোষ্ঠকাঠিন্য: যোয়ানের পাচন বা কাথ নিয়মিত সেবন করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। এতে অস্ত্রে পচনও হয় না।

    ঋতুস্রাবের গোলযোগ: মেয়েদের মাসিক বা ঋতুস্রাবের গণ্ডগোল বা ঋতুস্রাব অবরোধ হলে পুরনো গুড় ও যোয়ানের আরক বা পাচন পান করলে গর্ভাশয়ের মা পরিষ্কার হয়ে যায়। এই পাচন বা কাথ সকাল-বিকাল দু’বার করে প্রতিদিন পান করতে হবে।

    বায়ু বিকার: অনেকেই খাওয়ার পর পেটে গ্যাস হয়, পেট গুড়গুড় করে, পেট ভার ভার লাগে, চোঁয়া ঢেঁকুর ওঠে। এমন হলে তিন গ্রাম যোয়ান এবং ২ গ্রাম খাওয়ার সোডা মুখে দিয়ে ২-৪ ঢোক উষ্ণ গরম জল খেলে উপকার পাওয়া যায়। এই যোয়ান-সোডা খেতে হবে দুপুরের ও রাতের আহারের মিনিট দশেক পরে। এটি একটি অব্যর্থ যোগ। গ্যাসজনিত সমস্ত বিকার এতে দ্রুত শান্ত হয়।

    সর্দি-কাশি: সর্দি কাশি হলে বা ঠাণ্ডা লাগলে পানের মধ্যে যোয়ান দিয়ে খেলে সেরে যায়।

    কৃমি: চার মায়া যোয়ান চুর্ণ ঘোলের সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ালে কৃমি বিশেষ করে বাচ্চাদের পেটের কুচো কৃমি নষ্ট হয়ে যায়।

    জ্বর: ১৫ গ্রাম যোয়ান একটা মাটির পাত্রে এক কাপ জল দিয়ে ভিজিয়ে রেখে দিতে হয়। পাত্রটি ছাদে রেখে দিতে হয়। সকালে থেকে নিয়ে ঐ জল জবগুস্তকে পান করাতে দিতে হয়। নিয়মিত এভাবে এক সপ্তাহ সোয়ান ভেজানো জল রোগীকে পান করলে উপকার পাওয়া যায়।

    সতর্কতা: স্বাস্থ্যের জন্য যেকোনো দ্রব ব্যবহার করো না কেনো। অবশ্যই চিকিৎসক পরামর্শ নেবেন। এই পোষ্ট কাউকে চিকিৎসক বানানোর জন্যে উৎসাহিত করে না। প্রয়োগ নিজ দায়িত্বে।

    সবার আগে পোষ্ট পেতে হলে আমাদের হোয়াটস্যাপ ও টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন হবেন।

    হোয়াটস্যাপ লিঙ্ক 👉জয়েন

    টেলিগ্রাম লিঙ্ক 👉জয়েন 

    One thought on “Ajwain Benefits: জোয়ান এর উপকারিতা জানলে চমকে যাবেন।”

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *