Sun. Feb 18th, 2024
    WhatsApp Group Join Now
    Telegram Group Join Now

    শেয়ার মার্কেটে ট্রেডিং করতে অনেকেই চাই, কিন্তু কোন সঠিক জ্ঞান না থাকায়, প্রচুর টাকার লোকসান করে বসেন। কেউ কেউ আবার সর্বহারা হয়ে যান এই শেয়ার মার্কেটে। কারণ শেয়ার মার্কেট কাজ করে সাইকোলজি, আর আপনি যদি আপনার সাইকোলজি টাই ঠিক না করেন, তাহলে আপনার লস অনিবার্য। তবে শেয়ার মার্কেটে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় আলোচনা করব এই ছোট্ট পোস্টটির মাধ্যমে। তাহলে চলুন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক –

    আগেই বলেছি শেয়ার মার্কেট কাজ করে আপনার, আমরা সবার মাইন্ড সাইকোলজি নিয়ে। তবে এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আজকে সাইকোলজি নিয়ে কথা বলবো না। সাপোর্ট আর রেজিস্ট্যান্স নিয়ে কথা বলব। যদি কেউ সাপোর্ট আর রেজিস্ট্যান্স বুঝতে পারে তাহলে সে অবশ্যই শেয়ার মার্কেটে ট্রেডিং করতে পারবে। শেয়ার মার্কেটে কাজ করতে গেলে এই সাপোর্টার রেজিস্ট্যান্স জানা একান্ত প্রয়োজন আছে।

    আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন এমন ব্যক্তি, টাকা তো আছে কিন্তু কোন শিক্ষা না থাকাই বা শেয়ার মার্কেট নিয়ে সাধারণ নলেজ না থাকায়, সামান্য একটু ভুলের জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা লস করে বসেন। আজকের এই ছোট্ট পোস্টে যদি আপনি দেখেন তাহলে আপনার আর কোনদিন লস হবে না। বরং প্রতিদিন আপনার লাভ হবে। তবে অবশ্যই বলব শেয়ার মার্কেটে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা সম্পূর্ণ আপনার নিজের দায়িত্ব দিয়ে খেলবেন। আগে ভালোভাবে শিখুন পরে টাকা ইনভেস্ট করবেন।

    আরো নতুন নতুন পোস্ট পড়তে হলে এখানে ক্লিক করুন 

    রেজিস্টান্স কি: শেয়ার মার্কেটে চ্যাট যখন উপরের দিকে যায় অর্থাৎ আপ ট্রেন্ড থাকে তখন ওপরে ওঠার সময় যে বাধার সৃষ্টি ওটাই শেয়ার মার্কেট এর রেজিস্টান্স। মার্কেট এর চ্যাট বা প্রাইস ওই বাধা পাওয়ার জন্যে ওই খানে আটকে যায়, এবং তখন ওই মার্কেট এর ট্রেন্ড এর পরিবর্তন হতে পারে। নীচে চ্যাট এর ছবি দেওয়া আছে দেখুন। যদি আপনি ওই রেজিস্টান্স বুঝতে পরেন ওই খানে কোনো শেয়ার কিনবেন না। পারলে বিক্রি করবেন এতে আপনার হয়তো লাভ হতে পারে। মার্কেট এর রেজিস্টান্স যদি দুর্বল হয় তবে অনেক সময় রেজিস্টান্স ভেঙ্গে শেয়ার মার্কেট এর গ্রাফ ওপরে চলে যায়।

    সাপোর্ট কি: এবার সাপোর্ট কি সহজ ভাষায় বুঝে নেওয়া যাক। সাপোর্ট মার্কেটে কখন কাজ করে জানেন। শেয়ার মার্কেটে এর চ্যাট বা গ্রাফ যখন নীচের দিকে যায় তখন ওই ট্রেন্ড এর যে বাধা সৃষ্টি হয় তাকেই শেয়ার মার্কেট এর সাপোর্ট বলা যায়। এই সময়ে কখনো বিক্রি করবেন না। যখন মার্কেট এর চ্যাট সাপোর্ট এর কাছে থাকবে তখন দেখে শুনে পারলে শেয়ার কিনে নিবেন। হয়তো আপনার ভালো প্রফিট হতে পারে। নীচে ছবি দেওয়া আছে দেখুন।

    share market strategy today
    share market strategy today

     

    সাপোর্ট ও রেজিস্টান্স থেকে প্রফিট: সাপোর্ট ও রেজিস্টান্স থেকে প্রফিট করতে হলে আপনাকে অবশ্যই সাপোর্ট এ শেয়ার মার্কেট এর চ্যাট বা গ্রাফ আসলে buy করবেন, আপনার প্রফিট টার্গেট পুরন হয়ে গেলে বিক্রি করে দিবেন। আবার যদি শেয়ার মার্কেট এর চ্যাট বা গ্রাফ রেজিস্টান্স এ এসে আটকে যায় তা হলে বিক্রি করে দিবেন। এই ভাবে সাপোর্ট ও রেজিস্টান্স এর স্টেটাজি কাজ করে।

    বন্ধুটা শেয়ার মার্কেটে প্রফিটেবল ট্রেডার হওয়া এতটা সহজ ব্যাপার নয়। এখানে অনেক কিছু শেখার বিষয় আছে, প্রথমে আপনার লস হবেই। কারণ এখানে বড় বড় ট্রেডাররা সব প্রথমে কিন্তু দেউলিয়া হয়। পরে শিখে গেলে ধীরে ধীরে সেই লস কভার করে নেয়। আপনার যদি লস সহ্য করার মতো সামর্থ্য থাকে, তবে কিন্তু আপনি ট্রেডিং করবেন। আর যদি লস সহ্য করতে না পারেন তাহলে এই শেয়ার মার্কেটে কথা ভুলে যেতে পারেন। কারণ এখানে এমন কোন লোক নেই বা ট্রেডর নেই যারা লস করেন নি।

    সতর্কতা: এই ছোট্ট তথ্যটি আপনাদের শিক্ষামূলক প্রতিবেদনের সাথে দেওয়া হয়েছে। এই পোস্ট কখনোই কাউকে ট্রেডিং করার জন্য বলেনা। যদি শেয়ার মার্কেটে কাজ করেন, সম্পূর্ণ নিজ দায়িত্বে করবেন।

    সবার আগে ও ভাইরাল নিউজ পেতে হলে আমাদের সোশ্যাল লিংক এর সাথে যুক্ত হয়ে যান 👇

    টেলিগ্রাম লিংক 👉জয়েন

    হোয়াটস্যাপ লিংক 👉জয়েন 

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *