Tue. Feb 20th, 2024
    WhatsApp Group Join Now
    Telegram Group Join Now

     

    মেয়েদের যৌনতা প্রদর্শনবাদ ও পরোক্ষ উত্তেজনা। মানে ছেলেদের উত্তেজনা অনু ধাবন করে মেয়েরাও উত্তেজিত হয়ে পড়ে। তাই মেয়েরা ওড়না পড়তে চায় না। কারন ওড়না না পড়লে ছেলেরা উত্তেজিত হবে। আর সেই উত্তেজনা মেয়েদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। ছেলেরা উত্তেজিত হচ্ছে এটা ভেবে মেয়েরাই উত্তেজিত হয়ে পড়ে।

     

    ১) ছেলেদের নিকট সেক্স হলো যৌন উত্তেজনা(৯০%)। মেয়েদের নিকট সেক্স মূলত উত্তেজনা নয় বরং আদর ৯০%। উত্তেজনা ১০% মাত্র।

     

    ছেলেরা মেয়েদের শরীর স্পর্শ করে মজা পায়। মেয়েরা ছেলদের স্পর্শ পেয়ে মজা পায়। ছেলেরা মজা করে। মেয়েরা মজা নেয়। ১০০% খাঁটি।

     

    ছেলেরা স্তন থেকে উত্তেজনা লাভ করে। ছেলেদের দেহে এমন কোন অঙ্গ নেই যে মেয়েরা সরাসরি উত্তেজিত হবে। বরং মেয়েদের ফোর প্লে করে উত্তেজিত করতে হয়। তাহলে শারীরিকভাবে ছেলেরা কতটা পিছিয়ে। তবে সেক্স চলাকালে মেয়েরা মজা কম পায় না। বরং ছেলেদের চেয়ে মেয়েরাই মজা বেশি পায়।

     

    মেয়েদের শরীরের বিশেষ অঙ্গগুলি লোভাতুর দৃষ্টির হয় কেন?

     

    সেক্স পজিশনে ছেলেরা মেয়েদের স্তন দেখে ও স্পর্শ করে উত্তেজিত হয়। আর মেয়েরা দেখিয়ে ও স্পর্শ পেয়ে উত্তেজনা লাভ করে। তাই তো মেয়েরা সেক্সের সময় উল্টো চোখ বন্ধ রাখতে পছন্দ করে। কেননা এতে মেডিটেশন করতে সুবিধা হয়।

     

    ছেলেদের নিকট সেক্স উত্তেজনা আর মেয়েদের নিকট সেক্স মেডিটেশন ও আদর। ছেলেরা আদর করে মেয়েরা আদর পায়। ছেলেরা মেয়েদের মুখে চুমু দেয়। মেয়েরা চুমু নেয়।

     

    মেয়েদেরকে প্রকৃতি এমন উপহার দিয়েছে যে সে তার বিপরীত লিঙ্গকে সহজে আকৃষ্ট করতে পারে।

     

    ছেলে হয়ে জন্মগ্রহন করাও এক ধরনের ভাগ্য। এতো সুন্দরী মেয়েদের উপভোগ করা যায়। মেয়েদের শরীরের অঙ্গগুলি ছেলেদের নিকট অধিক লোভাতুর দৃষ্টির হয়। তাই ছেলে হয়ে জন্মগ্রহন করার মানে অধিক রঙ্গিন পৃথিবীতে জন্মগ্রহন করে।

     

    অন্যদিকে ছেলেদের দিকেও মেয়েরা আকৃষ্ট হয়। নতুবা মেয়েদের জীবন নিরস নির্জীব মনে হতো। তবে এই ভাবে তুলনা করলে মেয়েরা ছেলেদের দিকে বহু কম আকৃষ্ট হয়। মেয়ে হয়ে জন্মগ্রহন করার মানে কিছুটা নিরস, নির্জীব ও কম আকর্ষনীয় পৃথিবীতে জন্মগ্রহন করা।

     

    মেয়েদের শরীরের বিশেষ অঙ্গগুলি লোভাতুর দৃষ্টির হয় কেন?

     

     

    মেয়েরা ছেলেদের আকৃষ্ট করে। যে আসক্ত,বশ,আকৃষ্ট করে তাকে জাগ্রত হতে হয়। আর ছেলেরা আসক্ত,বশ,আকৃষ্ট হয়। আকৃষ্ট হতে হলে অজ্ঞান হলেও চলে। যে মাছ ধরে সে জাগ্রত। সে দেখেই টোপ ফেলে। আর মাছ খাবার কর্তৃক আকৃষ্ট হয়। তখন মাছটি অজ্ঞান। সে না দেখে খাবার খেতে আসে।

     

    প্রত্যেক প্রানীকেই প্রকৃতি কিছু কৌশল দিয়ে দিয়েছে। যেহেতু মেয়েদের দেহ নরম তাই ছেলেরা তার মনটিকেও নরম মনে করে বোকা হয়ে যায়। মেয়েরা যেহেতু গর্ভকালীন বিপদসংকুল। তাই ইহা এড়াতে মেয়েদের ইন্দ্রিয় শক্তি খুব শক্তিশালী করা হয়েছে। এরা কখনো সেক্সে অন্ধ হয় না। তাই মেয়েদের মধ্যে ধর্ম প্রবর্তক বা ফিলোসফার আসে না।

    দু:খজনক হলে সত্যি মেয়েরাই অধিকহারে যৌন বঞ্চিত হয়। কারন মেয়েরা প্রায়শই বয়স্ক পুরুষ কেই বিয়ে করে। আবার পুরুষের অকাল মৃত্যুও বেশি। তবে যৌনতা নিয়ে মেয়েদের অভিযোগ কম। কারন তাদের ধৈর্য্য বেশি। তাদের মাতৃত্ব বিকশিত। ফলে যৌন বঞ্চিত হলেও তাদের যেন এ নিয়ে তেমন পরোয়া নেই।

     

    মেয়েদের স্তন একটি স্বার্থপর জৈবিক উপাদান যা যুবকদের কাম প্রতিযোগিতায় উস্কিয়ে দিয়ে আসলে বাচ্চার স্বার্থ রক্ষা করে চলেছে।মেয়েদের স্তন বাচ্চাদের স্বার্থেই তৈরি। কামুক যুবকের তৃষ্ণা নিবারনে জন্য তৈরি নয়। এটাই প্রাকৃতিক উপলব্ধি। কেননা ছেলেরা  দেহের নারী পেতে কাম প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হলে বাচ্চার লাভ।

     

    মেয়েদের শরীর ছেলেদের তুলনায় বেশি লোভাতুর দৃষ্টির হবে। কেননা প্রকৃতি মেয়েদের শরীরের মাধ্যমে বাচ্চার স্বার্থ রক্ষা করে চলেছে।

    মেয়েদের শরীরের বিশেষ অঙ্গগুলি লোভাতুর দৃষ্টির হয় কেন?

     

     

    ২) মেয়েরা কেবল অবচেতনে নয় পরিকল্পিতভাবেও ছেলেদের আকৃষ্ট করার জাল পেতে রেখেছে।

     

    ছেলেরা এমনিতেই আসক্ত হয় না। মেয়েরা ছেলেদের আসক্ত করে ছাড়ে। এমনিতেই মেয়েদের লোভাতুর প্রাকৃতির শরীর। তার উপর শরীরের অধিক যত্ন নেয়। এবং এমন ড্রেসআপ করে যে আসক্ত করেই ছাড়বে। কেননা উপযুক্ত ছেলেকে আকৃষ্ট করতে পারলে তাদের মাতৃত্বের কঠিন জীবনকে সহজ করে দিবে।

     

    কিন্তু উপযুক্ত ছেলেকে আসক্ত করার আশায় বিবর্তন তাদের এমনভাবে গড়েছে যে তারা ২৪ ঘন্টাই সেজেগুজে থাকতে পছন্দ করে।

     

    মেয়েদের শরীরের বিশেষ অঙ্গগুলি লোভাতুর দৃষ্টির হয় কেন?

     

     

    গাড়ির মালিক গাড়ি বিক্রির আগে পেইন্ট করায় আরো বেশি দামে গাড়ি বিক্রি করার জন্যে। মেয়েরা সাজগোছ করে আরো বড় মানের পাত্র ধরার জন্যে। অনুপযুক্ত নিন্মমানের পাত্র ভুলবশত আকৃষ্ট হওয়ার জন্যে নয়।

     

    আমাদের এই পোস্টি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তবেই শেয়ার করবেন। যদি কিছু বোঝাতে পেরেছি তবে কমেন্টস করে বলবেন আর যদি নাও পারি সেটাও বলবেন। ধন্যবাদ নীচে আমাদের টেলিগ্রাম ও হোয়াটস্যাপ গ্রুপ লিংক আছে সেখানে জয়েন হতে পারেন।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *