Sun. Mar 3rd, 2024
    WhatsApp Group Join Now
    Telegram Group Join Now

     

    কীভাবে বুঝবো যে কোনো মেয়ের মনের কথা?

    অনেকেই বলে থাকেন মেয়েদের মন বোঝা খুবই জটিল। মেয়েরা কখন যে কি করে বসে , কখন কি ভাবে, কখন কি বলে সত্যিই নাকি ছেলেদের পক্ষে জটিল বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

     

    তবে আমি বলতে চাই মেয়েদের মন বোঝা টা খুবই বেশী একটা জটিল কাজ বা বিষয় নয়। তুমিও চেষ্টা করলে এবং খুবই সহজে সঠিক ভাবে লক্ষ্যঃ করলে সহজেই তাদের ব্যাপারে অনেক তুমি কিছু অজানা তথ্য জানতে পেরে যাবেন।

     

    যে সব ছেলে বন্ধুদের মেয়ে বন্ধুর পরিমান বেশী আছে তারা কিন্তূ খুবই তাড়াতাড়ি বলো দিতে পারে, যে কোনো মেয়ের কথা । কিন্তু দেখা যায় অপরদিকে আপনি পারবেন না।

     

    কারণ, তেমন ভাবে মেয়েদের সঙ্গে আপনি মেলামেশা করেন নি তাই ।আপনি হয়তো গল্পের বই পড়েন, কিংবা সিনেমা দেখে আপনি অনেক কিছু অবশ্যই জানতে পারবেন। কিন্তু সেগুলো বাস্তবে জীবনে খুব একটা কার্যকর হয়ে উঠে না।

     

    যেমন, সিনেমার নায়ক কিংবা নায়িকারা অনেক টা পাগলাটে টাইপের হয়ে থাকে। নায়ক নায়িকা কে দেখার পর তার সব কাজ ফেলে দিয়ে নায়িকার পেছনে পেছনে ঘুরতে থাকে।

     

    এখানে আমি বলবো আপনি যত বেশি মেয়েটির পেছনে ঘুরবেন। মেয়েটির লেজ ও তত বেশি মোটা হয়ে যাবে।

     

    সত্যি কারের কাউকে ভালোবাসতে চাইলে ভুলেও তার পেছনে ঘুরবেন না………..

     

    তার আগে মেয়েদের ব্যাপারে কিছু অজানা তথ্য জেনে নেওয়া জরুরী……..

     

    (১) মেয়েরা সাধারণত কোনটা সত্যি কথা এবং কোনটা মিথ্যা কথা খুব সহজেই বুঝতে পারে। কারণ, তারা মিথ্যা কথা ছেলেদের তুলনায় বেশি বলে থাকে এবং মেয়েদের অবজারভেশন ক্ষমতা খুব ভালো।তাই আপনি যদি তাদের মিথ্যা কথা বলতে যান তাহলে আপনার ধরা পড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

     

    (২) মেয়েদের মধ্যে ঈর্ষান্বিত ব্যাপারটা ছেলেদের তুলনায় একটু বেশি করে দেখা যায়। মেয়েরা সাধারণত অধিকার বজায় রাখতে বেশি পছন্দ করে। আপনি যদি অন্য কারোর সাথে কথা বলেন তখন সে ভীষন রেগে যায় সেই মেয়েটির উপর।

     

    (৩) আপনি যদি মেয়েদের সামনে আপনার জীবনের সব ঘটনা, সব কথা খুলে বললে তারা সেটিকে বিশ্বাস করে নেয় এবং নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করে থাকে।

     

    (৪) যে কোনো একজন নারী তার কোন কথা বা কোন গোপন বিষয় বেশি দিন পেটের ভিতর রাখতে পারে না। দুই দিনের মধ্যেই বমি করে বের করে দেয় অন্য মানুষ এর কাছে ।

     

    (৫) আপনি জানেন কি মেয়েরা আর একটি জিনিস খুব ভালো পারে, সেটি হল কান্নাকাটি করতে। কথায় কথায় ওদের চোখে জল এসে যায়।

     

    (৬) মেয়েরা ফেসবুকে বা অন্য যে কোন সোস্যাল সাইটে কোন কারণ ছাড়াই কিম্তু কোন পৌস্ট করে না। জানতে হবে এর পেছনে নিশ্চয়ই কোন কারণ বা ঘটনা অবশ্যই আছে।

     

    (৭) আপনি মেয়েদের কে আপনার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে এবং আপনার অন্য কোনো বন্ধুদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলে আপনার প্রতি তার ভরসা আর বিশ্বাস অনেক গুন বেড়ে যায়।

     

    (৮) ছেলেরা যেমন মেয়েদের দিকে তাকায় তেমনি মেয়েরাও ছেলেদের দিকে তাকায়। কিন্তু তাদের তাকানোর কিছু কৌশল আছে । ছেলেরা যেমন ভেলভেল করে তাকায় মেয়েদের দিকে। মেয়েরা কিন্তু এতটা সময় নেয় না তারা একবার চোখ বুলিয়ে বলে দিতে পারে কে বা কারা তার দিকে কি ভাবে তাকিয়ে আছে।

     

    (৯) প্রতিটি মেয়েরা জানে তাদের কেমন দেখতে লাগে তবুও তারা জানতে চায় তাঁদের কে দেখতে কেমন লাগছে । কারণ, প্রশংসা শুনতে কার না ভালো লাগে তাই মেয়েরা এটা একটু বেশিই চায়।

     

    (১০) প্রত্যেক মেয়েরা চায় তার সঙ্গী যেন তাকে খুব ভালোবাসুক।

     

    যে সব মেয়ে প্রথম এই ভালোবাসা পায় সে মেয়ে সহজে তাকে ছাড়তে পারে না এবং তারা ভুলতেও পারে না কখনও।

     

    (১১) কোন মেয়ে যদি একবার কোন ছেলেকে মন থেকে অপছন্দ করতে শুরু করে যে কোন কারনে। তাহলে সেই মেয়ে সহজে তাকে আর মনের মধ্যে জায়গা দিতে পারে না।

     

    পরের পোষ্ট এ বাকি অংশ দিচ্ছি।

     

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *